আগামী ৮ই অক্টোবর থেকে দেশের ১০ বিভাগীয় শহরে গণ-সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। বুধবার দুপুরে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচির ঘোষণা করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, গত ২৬শে সেপ্টেম্বর রাতে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

মহাসচিব বলেন, সভায় গণবিরোধী কর্তৃত্ববাদী ফ্যাসিস্ট আওয়ামী সরকার কর্তৃক চাল, ডাল, জ্বালানি তেল, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, চলমান আন্দোলনে ভোলার নুরে আলম ও আব্দুর রহিম, নারায়ণগঞ্জে শাওন, মুন্সিগঞ্জে শহিদুল ইসলাম শাওন ও যশোরে আব্দুল আলিম মোট ৫ জন হত্যার প্রতিবাদে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া’র মুক্তি এবং নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদে আগামী ৮ই অক্টোবর থেকে সারা দেশে বিভাগীয় গণ-সমাবেশ অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ৮ অক্টোবর চট্টগ্রাম, ১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহ, ২২ অক্টোবর খুলনা, ২৯ অক্টোবর রংপুরে, ৫ নভেম্বর বরিশালে, ১২ নভেম্বর ফরিদপুর, ১৯ নভেম্বর সিলেট, ২৬ নভেম্বর কুমিল্লা, ৩ ডিসেম্বর রাজশাহী এবং ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় গণ-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে ।

ফখরুল বলেন, জাতিসংঘের ৭৭তম অধিবেশনে যোগদান শেষে নিউইয়র্কে শেখ হাসিনার দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি বিশেষ করে গুম, বিনা বিচারে হত্যাকাণ্ড এবং সরকারী দমন নীতি সম্পর্কে মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে সভায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। একই সঙ্গে নির্বাচন সম্পর্কে শেখ হাসিনার নির্লজ্জ মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। তিনি বলেন, পরিকল্পিতভাবে শেখ হাসিনার সরকার নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করে ফেলেছে। ২০১৪ ও ২০১৮ এর জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও স্থানীয় সরকার নির্বাচন গুলিই তার প্রমাণ। এই নির্বাচনগুলিতে ভোটাররা ভোট নিতে পারেনি। বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্লজ্জ মিথ্যাচার থেকে বিরত থেকে দেশে এসে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করাই তার উচিত।
– মানবজমিন