আব্দুস সালাম,টেকনাফ:
কক্সবাজারের টেকনাফের সদর ইউনিয়নের বটতলী এলাকায় র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন(র‌্যাব-১৫) এর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে দুইজন অপহৃত ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়েছে।

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার সহকারী পরিচালক (ল’ এন্ড মিডিয়া) মোঃ বিল্লাল উদ্দিন গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।
র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার এর সিপিসি-২ টেকনাফ হোয়াইক্যং ক্যাম্পে কফিল উদ্দিন (২০) নামক একজন ব্যক্তি অভিযোগ দায়ের করে যে, তার আপন ছোট ভাই উখিয়া জালিয়াপালং ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মনখালী এলাকার জহুর আহাম্মদের
নুরুল আমিন (১৩) ও তার প্রতিবেশী মো. হারেজের মোঃ তারেক (১৪) গত ৭ সেপ্টেম্বর অনুমানিক ৩ টার দিকে তার ভাই ও প্রতিবেশীকে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ ক্যাম্প-৩ এর
কতিপয় অজ্ঞাত অপহরণকারী লোকমান হাকিমের ছেলে
আব্দুর রশিদ (৩৫) মালয়েশিয়া নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে অপহরণকারীরা ভিকটিমদেরকে অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে ভিকটিম প্রতি
২ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এছাড়া মুক্তিপণ না দিলে ভিকটিমদেরকে খুন করে লাশ গুম করে ফেলার হুমকিসহ বিভিন্ন রকম ভয়ভীতি প্রদান করে। বিষয়টি র‌্যাব-১৫ এর সিপিসি-২ হোয়াইক্যং ক্যাম্প অবগত হয়ে অপহৃত ভিকটিমকে উদ্ধার করতে র‌্যাব-১৫, হোয়াইক্যং ক্যাম্পের আভিযানিক দল বিভিন্ন গোয়েন্দা কার্যক্রম জোরদার করে এবং অপহৃতদের উদ্ধারসহ অপহরণকারীদের গ্রেফতার করতে বিভিন্ন অভিযান চালায়। উপর্যুপরি অভিযানের প্রেক্ষিতে অপহরণকারীরা কোন উপায় না পেয়ে ভিকটিমদেরকে মিয়ানমার থেকে নদীপথে বাংলাদেশে নিয়ে এসে টেকনাফ মডেল থানার অজ্ঞাত স্থানে রেখে পালিয়ে যায়।
পরবর্তীতে ১৪ সেপ্টেম্বর অনুমানিক ২ টার দিকে টেকনাফ থানাধীন সদর ইউপিস্থ বটতলী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভিকটিমদেরকে উদ্ধার করে। ভিকটিমদেরকে উদ্ধারপূর্বক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদের পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।
তিনি আরো জানান,ভিকটিমদেরকে উদ্ধার করে হস্তান্তরর্পূবক অপরাধীদের বিরুদ্ধে টেকনাফ মডলে থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু করার জন্য অভভিাবকদরে পরার্মশ প্রদান করা হয়েছে।