হ্যাপী করিম, মহেশখালী:
আলোর স্রোতে প্রাণের মেলায়’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বর্ণিল আয়োজনে কুতুবজোম জামেউস সুন্নাহ দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১১ ই জুলাই সোমবার সকাল ১০ টায় প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে, ১৯৭৬ সালে স্থাপিত প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠের ক্যাম্পাসে আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে সদস্যভুক্ত হয়ে মিলন মেলায় অংশ নেয় প্রায় হাজার এর অধিক প্রাক্তন ছাত্ররা। এ দিন প্রিয় মাদ্রাসার প্রাণের বন্ধুদের টানে দেশ এবং দেশের বাইরে থেকে অংশ নেওয়া প্রাক্তন ছাত্রদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে পুরো শিক্ষাঙ্গন। পুরনো বন্ধুদের কাছে পেয়ে তৈরি হয় আনন্দ আর আবেগঘন পরিবেশের। দিনভর চলে আড্ডা, মাদ্রাসার স্মৃতিচারণ, ফটোসেশন ও সাংস্কৃতিক আয়োজন।

শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের ও জাতীয় সংগীত মুুুুখরিত ধ্বনির মধ্যেই মিলন মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন.. প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক।

কুতুবজোম জামেউস সুন্নাহ দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সদস্য ও প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের আহবায়ক আব্দুল কাদের এর সভাপতিত্বে এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন..মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ প্রণব চৌধুরী, কুতুবজোম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট শেখ কামাল, কুতুবজোম জামেউস সুন্নাহ দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আমির হোসেন কোম্পানি, স্থানীয় বিশিষ্টজন, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, দাতা সদস্য, শিক্ষক, পরিচালনা কমিটির সদস্য ও প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা এতে উপস্থিত ছিলেন।

পরে স্মৃতিচারণ পর্বে মাদ্রাসা নিয়ে নানা গল্পে আয়োজনকে আরো বর্ণিল করে তোলেন প্রাক্তন ছাত্ররা। এ সময় মাদ্রাসার প্রিয় ও ক্যাম্পাসের নিয়ে নিজেদের স্মৃতিচারণ করেন প্রাক্তন ছাত্র’সহ আরো অনেকে।

মিলন মেলার উদযাপন কমিটির আহবায়ক আব্দুল কাদের বলেন, আমরা আজ প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলে এত বড় একটা মিলন মেলার অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পেরে আনন্দিত। সকলে যদি আন্তরিক থাকে তাহলে প্রতি বছর এ রকম অনুষ্ঠান করতে পারবো বলে মনে করি। মাদ্রাসা থেকে পাস করে বের হয়ে যাওয়ার পর জীবন বাস্তবতার সময়ের প্রয়োজনে আমরা প্রত্যেকে বিভিন্ন দিকে ব্যস্ত থাকি। সবার সাথে মিলিত হওয়ার সুযোগ খুব একটা আসে না। তাই সবার সান্নিধ্য ও উপস্থিত পেয়ে ভালো লাগছে। আশা করি আগামীতে ও আমরা এই প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের পুনর্মিলনীর ধারা অব্যহত রাখেবো।

দিনব্যাপি মিলন মেলায় উপস্থাপ করেন প্রাক্তন ছাত্র মিলন মেলার উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব রাশেদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে অত্র প্রতিষ্ঠানের সম্মানীত মরহুম শিক্ষক স্মরণ, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক, বিশিষ্টজন ও সাবের পরিচালনা কমিটির সদস্যদের সম্মাননা ক্রেস ও সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্তি হয়।