নিউজ ডেস্ক:

শিক্ষার মানোন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সারাদেশের স্নাতক পর্যায়ের সব সরকারি কলেজ স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দিক। দ্রুতই এই কার্যক্রম শুরু হবে।

মঙ্গলবার (৩১ মে) রাজধানীর ঢাকা কলেজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে নির্দেশ দিয়েছেন সারাদেশের অনার্স পর্যায়ের সরকারি যতগুলো কলেজ রয়েছে সেগুলোকে স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করতে। বর্তমানে যেমন রাজধানীর সাতটি সরকারি কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়েছে। তেমনি চট্টগ্রাম বিভাগের সরকারি কলেজগুলোকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে সারাদেশেই এটি বাস্তবায়ন করা হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়ার পর রাজধানীর সাতটি কলেজের শিক্ষার মান অনেকটা বেড়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তির পর গতানুগতিক যে পাঠ্যক্রম ছিল তার মধ্যে পরিবর্তন এসেছে। যদিও অবকাঠামো সুবিধা যেমন ছিল তেমনটিই রয়েছে। শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার ফলে ক্লাসরুম সমস্যা কিছুটা বেড়েছে। সেসব সংকট নিরসনের চেষ্টা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সরকারি কলেজগুলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নিয়ে এলে শিক্ষার মানোন্নয়ন হবে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সরকারি কলেজগুলোর শিক্ষার মান তদারকি করতে পারবে। এখন সারাদেশে এতগুলো সরকারি কলেজ যেগুলোকে ঢাকা থেকে পরিচালনা করা সম্ভব হয়ে উঠছে না।

তাই প্রধানমন্ত্রী আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন কলেজগুলোকে স্থানীয় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করার এবং এটাকে লক্ষ্য রেখেই জেলা পর্যায়ে আরও অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় করা হচ্ছে।

ঢাকা কলেজের অবকাঠামো উন্নয়নের বিষয়ে তিনি বলেন, ঢাকা কলেজের উন্নয়নে মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়নের পরিকল্পনা রয়েছে। দেশের প্রথম ও ঐতিহ্যবাহী কলেজ হিসেবে এর প্রতি আমাদের আলাদা আবেগ রয়েছে। সব কলেজের চেয়ে এই কলেজের অবকাঠামো এবং সার্বিক পরিবেশ সবচেয়ে সুন্দর হবে সেটি আমাদের প্রত্যাশা। শিক্ষায় আমাদের দুটি প্রসেস (কার্যধারা) রয়েছে।

একটি হলো বিদ্যমান আমাদের যেসব অবকাঠামো রয়েছে সেগুলোকে সুন্দর ও শক্তিশালী করা। আরেকটি হলো যেখানে কিছু নেই সেসব এলাকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করা।

তিনি আরও বলেন, বিগত কয়েক বছরের কাজ পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে বিভিন্ন এলাকায় নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হয়েছে, বড় বিল্ডিং হয়েছে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছে। প্রয়োজন অনুসারে গ্রামগঞ্জে অনেক নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সরকারের পক্ষ থেকে করে দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে প্রাচীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর দিকে আমরা মনোযোগী হতে পারিনি। আমার মনে হয় গুরুত্ব অনেক কম দিয়ে ফেলেছি। এখন সেসব প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ আরও সুন্দর করার জন্য ও এই যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আধুনিক অবকাঠামো নির্মাণে আমাদের ইচ্ছা আছে। আর সে কারণেই আজ ঢাকা কলেজে এসেছি।

এসময় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ, ঢাকা কলেজ অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক এ টি এম মইনুল হোসেন, ঢাকা কলেজ শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক ড. মো. আব্দুল কুদ্দুস সিকদারসহ অন্যান্য শিক্ষক ও কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।