লাইট হাউসে স্কুল শিক্ষককে কুপিয়ে জখম

সংবাদদাতা:
কক্সবাজার শহরে ১২ নং ওয়ার্ডের লাইট হাউজ পাড়ার স্কুল শিক্ষক মোশারফ হোসাইনকে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করেছে চিহ্নিত একদল সন্ত্রাসী।

শুক্রবার (৯মার্চ) সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মোশারফ হোসাইন ওই এলাকার বিশিষ্ট দানবীর লাইট হাউজ কিন্ডার গার্ডেন্ট ও হযরত আলী (রা) মসজিদ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আমির হোসেন এর ছেলে। ওই সময় সন্ত্রাসীরা সভাপতিকেও শাররিকভাবে লাঞ্চিত করে। এ ঘটনায় জড়িত ৪ জনকে আসামি করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগি পরিবার। যার নং-১৮৩৬। মামলার আসামীরা হলেন, মৃত রশিদ আহমদ এর ছেলে মো: হোছন (১৮), হোছন এর ছেলে নিশাত (২২), তাওসিব (২০) এবং তাওসিন (১৮)। এছাড়া অজ্ঞাত রয়েছে বেশ কয়েকজন।

ভুক্তভোগির পরিবার ও এজাহার সুত্রে জানাযায়, বিগত কিছুদিন ধরে টেকপাড়ার মৃত রশিদ আহমদ এর ছেলে ভূমিদস্যু মো: হোছন এর নেতৃত্বে ভূমিগ্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী একটি চক্র মোশারফ হোসাইন এর পৈতৃক সম্পত্তি দখলে নিতে নানা অপচেষ্টা চালিয়ে আসছিল। এছাড়া তাদের স্বত্ত্ব দখলীয় জমি দখলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধমকি দিয়ে আসত তারা। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে মো: হোছন এর নেতৃত্বে আসামীগণ দা, কিরিচ, লোহার রড ও মারাতœক অস্ত্রেস্বস্ত্রে সজ্জিত হইয়া লাইট হাউজ পাড়ার বাগঘোনাস্থ মোশারফ এর পৈতৃক জায়গা দখল করার জন্য উপস্থিত হয়। লোকজন থেকে খবর পেয়ে সে সেখানে গেলে কিছু বোঝে উঠার আগে সালাকে জীবন শেষ করে দেয় বলে, ধারালো কিরিচ দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপায় তাকে। এসময় মোশারফ এর মাথায় হাঁড়কাটা গুরুত্বর জখম ও আঙ্গুলের একটি অংশ ছিড়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুত্রকে সন্ত্রাসীদের কবল থেকে উদ্ধার করার চেষ্টা করিলে পিতা আমির হোসেনকেও কিল, ঘুশি মেরে বীরদর্পে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে অসামীরা। এসময় একটি স্যামসং মোবাইল সেট ও নগট ২০ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারা। পরে গুরুত্বর জখমী অবস্থায় মোশরাফকে লোকজন কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এসময় তার অবস্থা গুরুত্বর দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার ভর্তির নির্দেশ দেন।

আহত মোশারফ এর পিতা: আমির হোসেন জানান, মামলাকে ভিন্ন হাতে প্রবাভিত করতে আসামীরা নানা অপশেষ্টা চালাচ্ছে। এছাড়া মামলা নামিয়ে না ফেললে ভিবিন্ন মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেওয়ারও নানাভাবে হুমকি প্রদান করছে। এ ঘটনার সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সুষ্ট বিচার ও আসামীদের দৃষ্টান্ত শাস্তি দাবী করেন তিনি।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানান, “হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া হয়েছে। দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনগত ব্যবসস্থা গ্রহণ করা হবে”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.