আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ উইকেটে জয়ী বাংলাদেশ

ত্রিদেশিয় সিরিজে বাংলাদেশের তৃতীয় ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ উইকেটের বিশাল জয় পেয়েছে টাইগাররা। শেষ পর্যন্ত সৌম্য সরকার করেন ৮৭ রান। ওপেনিংয়ে নেমে তামিম ইকবাল ৪৭ রান করে দলের সুন্দর ভিত্ত্বি রচনা করে দেন। তারপর সাব্বির ৩৫ রান করেন।

এর আগে টস জিতে বোলিং নেয় বাংলাদেশ। মোস্তাফিজের বোলিং তোপে শুরু থেকেই চাপে পড়ে আইরিশরা। মাশরাফি-রুবেল-সানজামুলের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ১৮১ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা। মোস্তাফিজ একাই নিয়েছেন চার উইকেট। দুটি করে উইকেট দখল করেছেন ক্যাপ্টেন মাশরাফি ও অভিষিক্ত সানজামুল। একটি করে উইকেট পেয়েছেন সাকিব ও মোসাদ্দেক।

এদিন অভিষেক ওয়ানডেতেই চমক দেখিয়েছেন সানজামুল। প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে এড জয়েসকে হাফসেঞ্চুরি বঞ্চিত করেছেন। ব্যক্তিগত ৪৬ রানে লং অনে তামিম ইকবালকে ক্যাচ দেন আয়ারল্যান্ডের এ ব্যাটসম্যান। এরপর ৪৪তম ওভারেও ভেলকি দেখান তিনি। ব্যারি ম্যাকার্থিকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে ১২ রানে তাকে সাজঘরের পথ ধরান সানজামুল।

বিপর্যস্ত সেই আইরিশদের শেষ দিকে একাই টেনে নিচ্ছিলেন জর্জ ডকরেল। কিন্তু ৪৭তম ওভারে তাকেও বিদায় করেন অধিনায়ক মাশরাফি। মুশফিকের হাতে ক্যাচ দেওয়ার আগে ২৫ রান করেন তিনি। একই ওভারের চতুর্থ বলে সেই মুশফিকের হাতেই শেষ ব্যাটসম্যান পিটার চেজকে তালুবন্দী করান মাশরাফি। আয়ারল্যান্ড শেষ পর্যন্ত গুটিয়ে যায় ১৮১ রানে।

ইনিংসের শুরুতেই বোলিং শুরু করেন পেসার রুবেল হোসেন। প্রথম ওভার মেডেন দেন তিনি। পরে বোলিংয়ে এসেই আইরিশদের ভিত্তি নাড়িয়ে দেন মোস্তাফিজুর রহমান। বাংলাদেশের তৃতীয় ম্যাচে নিজের প্রথম ওভারেই তুলে নেন স্টারলিংয়ের উইকেট। দ্বিতীয় স্পেলেও তিনি ফেরান আয়ারল্যান্ডের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান নিয়াল ও’ব্রায়েনকে (৩০)। থার্ড ম্যানে তামিম ইকবালের সহজ ক্যাচ হন আইরিশ ব্যাটসম্যান। পরের বলে কেভিন ও’ব্রায়েনের উইকেটটি পেতে পারতেন মোস্তাফিজ। কয়েক ইঞ্চির জন্যে সাব্বির রহমান ক্যাচটি লুফে নিতে পারেননি। বাংলাদেশ আউটের আবেদন করলে টিভি রিপ্লেতে দেখা গেছে বল মাটিতে লেগে সাব্বিরের হাতে গেছে। সেই মোস্তাফিজ ৩১.৪ ওভারে আর ব্যর্থ হননি। তার বলে কেভিনকে তালুবন্দি করেন মোসাদ্দেক হোসেন। কেভিন বিদায় নেন ১০ রানে। এক ওভার বিরতি দিয়ে ফের উইকেট নেন মোস্তাফিজুর। বিতর্কিতভাবে দেওয়া এই আউটে ক্যাচ নেন মুশফিকুর রহিম।

এই সিরিজে বাকিরা সাফল্য পেলেও নিষ্প্রভ ছিলেন সাকিব। কিন্তু এই ম্যাচ দিয়েই ফিরে পেয়েছেন নিজেকে। ত্রিদেশীয় সিরিজে প্রথম উইকেট পান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। নিজের দ্বিতীয় ওভারে অ্যান্ডি ব্যালবার্নিকে (১২) বোল্ড করেন। মোসাদ্দেক হোসেন তার আগে নেন আয়ারল্যান্ডের দ্বিতীয় উইকেট। আগের ওভারেই উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডকে শর্ট এক্সট্রা কভারে জীবন দিয়েছিলেন মোসাদ্দেক। সহজ ক্যাচ ছেড়ে দিয়ে মাশরাফি মুর্তজাকে উইকেট বঞ্চিত করার পর নিজেই সেই আক্ষেপ কাটান তিনি। ক্রিজে শক্তিশালী হয়ে ওঠা আয়ারল্যান্ড অধিনায়ককে ফিরতি ক্যাচ বানিয়েছেন মোসাদ্দেক। ২৫ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ২২ রানে আউট হন পোর্টারফিল্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.